সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:২৭ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

আজ আবার পাকিস্তানে স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে- ইমরান খান

আজ আবার পাকিস্তানে স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে- ইমরান খান

স্বাধীনবাংলা, আন্তর্জাতিক খবকরঃ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীত্ব হারানো পর রবিবার এক টুইট বার্তায় ইমরান খান বলেন, দেশের শাসন ব্যবস্থা পরিবর্তনে বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে পাকিস্তানে আজ আবার স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে।

বিরোধীদের আনা অনাস্থা ভোটে হেরে ইমরান খান টুইট বার্তায় বলেন, ‘১৯৪৭ সালে পাকিস্তান একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হয়। কিন্তু দেশের শাসন ব্যবস্থা পরিবর্তনে বিদেশি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আজ আবার পাকিস্তানে স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে। দেশের জনগণই সর্বদা তাদের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষা করে।’

এর আগে, দেশটির সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী শনিবার অনাস্থা ভোটের জন্য জাতীয় পরিষদের অধিবেশন ডাকা হয়। সকাল সাড়ে দশটায় শুরু হয়ে বারবার মুলতবির মাধ্যমে দিনভর চলে নানা নাটকীয়তা। এমনকি পরিস্থিতি বিবেচনায় স্থানীয় সময় রাত নয়টায় মন্ত্রী পরিষদের জরুরি বৈঠক ডাকেন ইমরান খান।

এরপর মধ্যরা‌তে সংস‌দের স্পিকার, ডেপু‌টি স্পিকা‌রের পদত্যা‌গের পর অনাস্থা ভো‌টে হে‌রে পা‌কিস্তা‌নের প্রধানমন্ত্রীর পদ হারা‌ন ইমরান খান। দেশটির ৩৪২ সদস্যের সংসদের ১৭৪ জনই ইমরান খানের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ায় ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি। অনাস্থা ভো‌টে হে‌রে পা‌কিস্তা‌নের সাত দশ‌কের কো‌নো প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার মেয়াদ পূর্ণ কর‌তে না পারার ইতিহাসের অংশ হ‌য়েছেন সা‌বেক এ ক্রি‌কেট তারকা।

গত ৮ মার্চ পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে ইমরান খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করে বিরোধী দলগুলো। গত ২৮ মার্চ জাতীয় পরিষদে আলোচনার জন্য অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। প্রস্তাব উত্থাপনের পর তা নিয়ে পার্লামেন্টে ভোট প্রদানের তারিখ বেশ কয়েকবার পিছিয়ে দেয়া হলে গেল রবিবার তা খারিজ করে দেয় ডেপুটি স্পিকার কাসিম সুরি। এরপরই প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে জাতীয় পরিষদ ভেঙে দেন প্রেসিডেন্ট। অনাস্থা প্রস্তাব খারিজের দিনই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে শুনানি গ্রহণ করেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

২০১৮ সালে নির্বাচিত হওয়ার পর এবারই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন ইমরান খান। ইমরানের বিরুদ্ধে আর্থিক অব্যবস্থাপনা এবং পররাষ্ট্রনীতির ভুলের অভিযোগ তুলেছিলেন বিরোধীরা।

 

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ