বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

আজ ভয়াল ২১ আগস্ট

আজ ভয়াল ২১ আগস্ট

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ

ভয়াল ২১ আগস্ট আজ। ২০০৪ সালের এই দিনে তৎকালীন বিরোধীদল আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে দলীয় সমাবেশে চালানো হয় দেশের ইতিহাসের নৃশংসতম গ্রেনেড হামলা। প্রধান টার্গেট বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেঁচে গেলেও সেই নারকীয় হামলা কেড়ে নেয় ২৪ তাজা প্রাণ। আহত হন আওয়ামী লীগের কয়েকশ নেতাকর্মী।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় সারা দেশে ছড়িয়ে পরা সন্ত্রাস আর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে চলছিল আওয়ামী লীগের এই প্রতিবাদী সমাবেশ। ২১ আগস্ট, ২০০৪ সাল।

ঘড়ির কাটায় তখন বিকেল ৫টা ২২ মিনিট। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখছিলেন তখনকার বিরোধীদলীয় নেত্রী, আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগ সভাপতির বক্তব্য চলার সময়েই শুরু হয় মুহুর্মুহু গ্রেনেড চার্জ। কিছু বুঝে ওঠার আগেই একে একে বিস্ফোরিত হয় ১৩টি গ্রেনেড। মুহূর্তেই রক্তাক্ত পুরো এলাকা। স্পিল্টারের আঘাতে রক্ত মাংসের স্তুপে পরিণত বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ।

চারদিক থেকে ভেসে আসে শত শত মানুষের বাঁচার আকুতি-আর্ত চিৎকার। ভাগ্যক্রমে নারকীয় সেই গ্রেনেড হামলায় অলৌকিকভাবে বেঁচে যান ঘাতকদের প্রধান টার্গেট বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। ব্যাক্তিগত দেহরক্ষীসহ নেতাকর্মীদের মানবঢাল নিশ্চিত মৃত্যু থেকে রক্ষা করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে।

সেদিন শুধু গ্রেনেড হামলা করেই থেমে থাকেনি ঘাতকের দল। গুলি চালায় শেখ হাসিনাকে লক্ষ্য করে। তবে সে বুলেট ভেদ করতে পারেনি তাঁকে বহন করা গাড়ির কাঁচ।

ঘাতকদের নৃশংস এমন হামলা থেকে শেখ হাসিনা প্রাণে বাঁচলেও, আওয়ামী লীগ নেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন নিহত হন হামলায়। পাশাপাশি আহত হয় দলের  শতাধিক নেতাকর্মী।

 

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ