শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৫৩ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

কেমন হবে জাহান্নামিদের পানীয় ?

স্বাধীনবাংলা রির্পোটঃ

কোরআন ও হাদিসে জাহান্নামিদের পাঁচ ধরনের পানীয়ের বিবরণ পাওয়া যায়। পানীয়গুলো সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা করা হলো—

১. ‘হামিম’ (উত্তপ্ত পানি) : কাফিরদের জাহান্নামে ফুটন্ত পানি পান করতে দেওয়া হবে। এতে নাড়িভুঁড়ি ছিন্নভিন্ন হয়ে যাবে। তাদের যখন খাদ্য হিসেবে জাক্কুম গাছের তিক্ত কাঁটাযুক্ত ফল দেওয়া হবে, তখন তা গলায় বিঁধে গেলে তারা পানি চাইবে।

তখন তাদের গরম পানি দেওয়া হবে এবং তারা তা তৃষ্ণার্ত উটের মতো পান করতে থাকবে। মহান আল্লাহ বলেন, ‘অতঃপর হে বিভ্রান্ত মিথ্যাবাদীরা! তোমরা অবশ্যই জাক্কুম বৃক্ষ থেকে আহার করবে এবং তা দিয়ে তোমাদের পেট পূর্ণ করবে। তারপর তোমরা পান করবে টগবগে ফুটন্ত পানি। তা পান করবে তৃষ্ণার্ত উটের মতো। কিয়ামতের দিন এটাই হবে তাদের আপ্যায়ন। ’ (সুরা : ওয়াকিয়া, আয়াত : ৫১-৫৬)

২. ‘গাসসাক’ (দুর্গন্ধযুক্ত পানি) : ইমাম কুরতুবি (রহ.) বলেন, এটি জাহান্নামিদের গলিত রস বিশেষ। অন্য অর্থে এটি পুঁজ। মহান আল্লাহ বলেন, ‘সুতরাং তারা আস্বাদন করুক ফুটন্ত পানি ও পুঁজ। ’ (সুরা : সোয়াদ, আয়াত : ৫৮)

৩. ‘স-দিদ’ (ক্ষতস্থান থেকে নির্গত পুঁজ ও রক্ত) : ‘স-দিদ’ বলা হয় ফোড়া বা ক্ষতস্থান থেকে নির্গত দুর্গন্ধযুক্ত পুঁজকে। উপরোক্ত দুর্গন্ধযুক্ত অপবিত্র পানি ও পুঁজ হবে জাহান্নামিদের পানীয়। যা তারা অতি কষ্টে গলাধঃকরণ করবে। মহান আল্লাহ বলেন, ‘তাদের প্রত্যেকের পরিণাম জাহান্নাম এবং সবাইকে পান করানো হবে অপবিত্র দুর্গন্ধযুক্ত গলিত পুঁজ। যা সে অতি কষ্টে গলাধঃকরণ করবে, আর তা তার জন্য অসম্ভব হয়ে পড়বে। তার কাছে মৃত্যুযন্ত্রণা আসবে চতুর্দিক থেকে। কিন্তু তার মৃত্যু হবে না এবং এরপর সে কঠোর শাস্তি ভোগ করতে থাকবে। ’ (সুরা : ইবরাহিম, আয়াত : ১৬-১৭)

৪. ‘আল-মুহল’ তৈলাক্ত গরম পানি) : উত্তপ্ত তৈলাক্ত পানীয়কে ‘আল-মুহল’ বলে। এটা জাহান্নামিদের পানীয় হিসেবে দেওয়া হবে। মহান আল্লাহ বলেন, ‘তারা পানি চাইলে তাদের বিগলিত গরম তৈলাক্ত ও দুর্গন্ধযুক্ত পানীয় দেওয়া হবে, যা তাদের মুখমণ্ডল বিদগ্ধ করবে। এটা নিকৃষ্ট পানীয় আর জাহান্নাম কত নিকৃষ্ট আবাসস্থল!’ (সুরা : কাহফ, আয়াত : ২৯)

৫. ‘তিনাতুল খাবাল’ (শরীর থেকে নির্গত ঘাম) : জাহান্নামিদের শরীর থেকে নির্গত ঘামকে ‘তিনাতুল খাবাল’ বলা হয়। পৃথিবীতে যারা মদ কিংবা নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করত এবং যারা অহংকারে স্ফীত হয়ে দুনিয়ায় চলাচল করত, তাদের জাহান্নামে শরীর থেকে নির্গত দুর্গন্ধযুক্ত ঘাম বা বিষাক্ত পুঁজ পান করতে দেওয়া হবে। এ মর্মে রাসুল (সা.) বলেছেন, প্রত্যেক নেশা সৃষ্টিকারী বস্তু হারাম। আর আল্লাহ অঙ্গীকার করেছেন, যে ব্যক্তি নেশাযুক্ত পানীয় পান করবে জাহান্নামে তাকে ‘তিনাতুল খাবাল’ পান করানো হবে। সাহাবিরা জিজ্ঞেস করেন, হে আল্লাহর রাসুল! ‘তিনাতুল খাবাল’ কী? তিনি বলেন, তা হলো জাহান্নামিদের ঘাম বা পুঁজ। (মুসলিম, হাদিস : ৫৩৩৫)

 

এসবিএন/এউরি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ