সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪১ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

ডুমুরিয়ায় দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র উদ্ধারে সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

খুলনা (ডুমুরিয়া) প্রতিনিধি :

খুলনার ডুমুরিয়ায় দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র উদ্ধারে সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। অত্র উপজেলার সাহস ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত মেম্বার ও আওয়ামী নেতা সিরাজুল ইসলাম সরদার ও তার কর্মীদের উপর প্রতিপক্ষের হামলার ঘটনায় এ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

 

১নং সাহস ওয়ার্ড  বাসীর ব্যানারে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের চৌরঙ্গী মোড়ে  বৃহস্পতিবার  এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মানববন্ধনে আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার,হামলার কাজে ব্যবহার করা দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র উদ্ধারের দাবী উঠে।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হাতপাখা প্রতিকের  প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সরদার মোজাফফর হোসেন,মাস্টার নজরুল ইসলাম,শারীরিক প্রতিবন্ধী ও হামলার শিকার আজহারুল ইসলাম সরদার,হাফিজুর রহমান ডালিম,নীলিমা বেগম,সাব্বির সরদার প্রমূখ।

মানব বন্ধন কর্মসূচীতে দাঁড়িয়ে ঘটনার বর্ণনায় নব-নির্বাচিত  ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম সরদার অভিযোগ করে বলেন, ভোটের পরদিন অর্থাৎ গত ১২ নভেম্বর সকালে নির্বাচনে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী পরাজিত প্রার্থী সহিদুল ইসলাম সরদার,তার ভাই কামরুল ইসলাম সরদার, এলাকার অবৈধ অস্ত্রধারী কুখ্যাত সন্ত্রাসী বহু মামলার আসামী দেলোসহ অন্তত ৩৫ জন আমার কর্মী সাইফুল ইসলামসহ অন্যানদের মারপিটের উদ্দেশ্যে তাদের বাড়িঘর ঘিরে রাখে। আমি খবর পেয়ে আমার লোকজন নিয়ে তাদের উদ্ধার করতে ঘটনা স্হলে গেলে সহিদুল ও তার সহযোগীরা আমাকে সহ আমার অন্তত ৮/১০ কর্মীকে মারপিট করে গুরুত্বর জখম করে।

 

আরও পড়ুনঃ গাইবান্ধায় বাসচাপায় নিহত ৫

পৌনে ৩ ঘণ্টা পর টাঙ্গাইল ছেড়েছেন গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া ও ভিপি নুরুল হক নুর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে জাসদ ছাত্রলীগের মানববন্ধনে পুলিশীবাধার অভিযোগ

 

স্হানীয় লোকজন আমাদের উদ্ধার করে ডুমুরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। পুলিশ ঘটনাস্হলে পৌঁছিয়ে হামলাকারীদের ৯ জনকে আটক করে। এই ঘটনায় আমার ভাই আতাউর রহমান বাদী হয়ে ২০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত নামা ১৪/১৫ জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা করেন। আসামীরা জামিনে মুক্তি পেয়ে বের হয়ে এসে এবং পলাতক অন্যান আসামীরা আমাকেসহ আমার কর্মী সমর্থকদের নানা বিধ হুমকি-ধামকি দিচ্ছে।

আর তাদের ইন্ধনদাতা ও অর্থ যোগানদাতা হিসেবে এলাকার অবৈধ কালো টাকার মালিক ও ব্যবসায়ী তোফাজ্জেল হোসেন তোফা নেপথ্যে ভূমিকা রাখছে। বক্তাগণ অবিলম্বে অন্য সকল আসামীদের গ্রেপ্তার,অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং ঘটনার সাথে জড়িতের আইনের আওতায় এনে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের কাছে দাবী জানিয়েছেন।

 

এসবিএন/ ডুমুরিয়া


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ