সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:১৯ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

ভূমধ্যসাগরে মৃত ৭ জনের মরদেহ আনার চেষ্টা চলছে

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ

২২ জানুয়ারি লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালির ল্যাম্পেডুসা দ্বীপের উদ্দেশে রওনা হয় অভিবাসন প্রত্যাশীদের একটি দল। এই যাত্রায় প্রচণ্ড শীতে মৃত্যু হয় ৭ বাংলাদেশির। তাদের মধ্যে ৫ জনই মাদারীপুরের।

নিহতদের মরদেহ বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে রাজি হয়েছে ইতালি। এর আগে, মৃতদের দাফন না করে দেশে পাঠাতে অনুরোধ জানায় ইতালির বাংলাদেশ দূতাবাস। রোববার রাষ্ট্রদূত শামীম আহসানকে ‍উদ্ধৃত করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বার্তায় বলা হয়, “মরদেহ দেশে পাঠানোর জন্য ইতালি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করছি আমরা।

”আমাদেরকে নিশ্চিতভাবে জানানো হয়েছে, আগামীকাল (সোমবার) ইতালিতে তাদের দাফন হবে না, যা কিছু গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে।”তিনি বলেন, “যে কোনোভাবে দাফন প্রক্রিয়া বন্ধ করতে আমরা ইতালি কর্তৃপক্ষকে জোরালোভাবে আহ্বান জানিয়েছি এবং তারা একমত হয়েছে।”

লিবিয়া থেকে যাত্রা করে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়া নৌকাটি ২৫ জানুয়ারি ল্যাম্পেডুসা দ্বীপে পৌঁছানোর সময় অতিরিক্ত ঠাণ্ডায় অভিবাসনপ্রত্যাশী সাত বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। শনিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে নিহতদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করেছে ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাস। সেখানে দেখা যায়, মারা যাওয়া সাতজনের পাঁচজনই মাদারীপুর জেলার।

তারা হলেন- মাদারীপুর সদর উপজেলার পশ্চিম পিয়ারপুর গ্রামের ইমরান হোসেন, একই উপজেলার পিয়ারপুর গ্রামের জয় তালুকদার, ঘটকচর গ্রামের সাফায়েত, মোস্তফাপুর গ্রামের জহিরুল ও সদর উপজেলার বাপ্পী, সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার সাজ্জাদ এবং কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার সাইফুল।

দূতাবাস জানিয়েছে, গত ২৫ জানুয়ারি ওই ঘটনায় যারা প্রাণে বেঁচে গেছেন, তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন দূতাবাসের শ্রমকল্যাণ বিভাগের কাউন্সিলর এরফানুল হকসহ বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রতিনিধিরা। তাদের মাধ্যমেই জানা গেছে মৃতদের নাম-পরিচয়।

ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার পথে মারা যাওয়া ৭ জনের বাকি দুইজনের একজন সুনামগঞ্জের সাজ্জাদ ও আরেকজন কিশোরগঞ্জের সাইফুল। অবৈধ পথে তাদের ইউরোপ যাওয়ার স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে স্বজনদের কাছে।

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ