বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

মন্ত্রিত্ব হারালেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নানা ধরণের আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়ে মন্ত্রিত্ব পদ হারালেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। গতরাতেই তাকে বাসায় ডেকে এ বার্তা পৌঁছে দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রাত ৯টায় ওবায়দুল কাদের সংসদ ভবন এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিষ্টাচারবহির্ভূত বক্তব্য দেওয়ায় নানা মহল থেকে ডা. মুরাদের অপসারণের দাবি ওঠে। এ নিয়ে খোদ সরকার ও আওয়ামী লীগের ভিতর-বাইরেই নানা আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়। সর্বশেষ দুই দিন ধরে ডা. মুরাদের একটি অডিও কথোপকথন ফাঁস হয়। সেখানে বিতর্কিত বক্তব্য শুনতে পাওয়া যায়। এ নিয়ে নারী নেত্রী ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরাও মুরাদের পদত্যাগ দাবি করেন। গতকাল সকালে গুলিস্তানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব।’ সন্ধ্যার পর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় প্রধানমন্ত্রী কাদেরকে সাফ জানিয়ে দেন ‘বিতর্কিত এই ব্যক্তিকে মন্ত্রিসভায় দেখতে চাই না। কালকের (আজকের) মধ্যে তাকে পদত্যাগ করতে বল।’

প্রধানমন্ত্রীর বার্তা নিয়ে রাত ৯টার দিকে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অসৌজন্যমূলক বক্তব্য দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে আগামীকালকের (আজকের) মধ্যে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে বলেছেন। আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে এবং আমি আজ রাত ৮টায় প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে বার্তাটি পৌঁছে দিই।’

মুরাদ হাসান জামালপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য। পেশায় চিকিৎসক এই রাজনীতিবিদ স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) ও একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ের পর আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয় তাকে। পরে ২০১৯ সালের মে মাসে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন তিনি।

 

এদিকে গতকাল সচিবালয়ে যাননি তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিতেও যোগ দেননি তিনি। বিকাল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর তোপখানা রোডে বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা থাকলেও সেখানে যাননি তিনি। এদিকে আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগের পর আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদও হারাতে পারেন জামালপুর-৪ আসনের এই এমপি। দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলে সংসদ সদস্য পদও চলে যেতে পারে তার।

 

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ