বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের মিলনমেলা অমর একুশে গ্রন্থমেলার শেষ দিন আজ

স্বাধীনবাংলা, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

আজই শেষ হচ্ছে লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের মিলনমেলা অমর একুশে গ্রন্থমেলা। মেলার শেষ সময়ে ভিড় বেড়েছে বই প্রেমীদের। এবারের মেলায় প্রকাশিত বইয়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি এসেছে কবিতার বই প্রায় এক হাজারের বেশি। তবে বিক্রিতে শীর্ষে উপন্যাস, গল্প আর প্রবন্ধের বই।

মঙ্গলবার পর্যন্ত নতুন বই এসেছে তিন হাজারের বেশি। বাংলা একাডেমির দেয়া তথ্য মতে, গতবারের মেলার ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার লক্ষ্য থাকলেও, এবার প্রত্যাশার চেয়ে বই বিক্রি হয়েছে অনেক বেশি। প্রকাশকদের দেয়া তথ্য মতে এবারে সবচেয়ে কম বিক্রি হয়েছে কবিতার বই। এছাড়া মেলায় নতুন লেখকদের প্রচুর বই আসলেও পাঠকদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে জনপ্রিয় লেখকরাই ছিলেন।

 

আগামী বছর মেলার পরিসর আরও বাড়ানো হবে, বাড়বে স্টলের সংখ্যাও, বলছে বাংলা একাডেমি। ১৯৭২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমির গেইটে চট বিছিয়ে বই বিক্রি শুরু করেন মুক্তধারা প্রকাশনীর মালিক চিত্তরঞ্জন সাহা। ১৯৭৭ সালে তার সঙ্গে আরও অনেকে যোগ দেন।

১৯৭৮ সালে বাংলা একাডেমির তৎকালীন মহাপরিচালক আশরাফ সিদ্দিকী বাংলা একাডেমিকে এ বইমেলার সঙ্গে সম্পৃক্ত করেন। পরের বছর মেলার সঙ্গে যুক্ত হয় বাংলাদেশ পুস্তক বিক্রেতা ও প্রকাশক সমিতি।

১৯৮৩ সালে মনজুরে মওলা বাংলা একাডেমির মহাপরিচালকের দায়িত্বে থাকার সময় ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’ নামে এ মেলা আয়োজনের প্রস্তুতি নেওয়া হলেও তা আর করা যায়নি। পরের বছর ১৯৮৪ সালে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ‘অমর একুশে বইমেলা’র সূচনা হয়।

 

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ