সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:২৮ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

সীমান্তবর্তী জেলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

স্বাধীনবাংলা, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

ভারতের সীমান্তর্বতী জেলাগুলোতে করোনার সংক্রমণ প্রতিদিনই বাড়ছে। গত বছর চাঁপাইনবাবগঞ্জে অন্য জেলার তুলনায় করোনা সংক্রমণ ছিল কম। এবার ফেব্রুয়ারির শেষে ও মার্চের মাঝামাঝি পর্যন্ত শনাক্তের হারও ছিল শূন্য। তবে, এপ্রিলে বাড়তে থাকে সংক্রমণ। গত মঙ্গলবার ৪১ জনের করোনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয় ২৬ জন। শনাক্তের হার ৬৩। সারা দেশে এই হার ৬ থেকে ৮ ভাগ।

এদিকে যশোর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সাতক্ষীরাতেও বাড়ছে রোগী। যশোরে ভারতফেরত ১৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। যারমধ্যে ৫ জনের শরীরে ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে। তবে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে শনাক্তের হার কেন এত বেশি তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন বৈধ এবং অবৈধ পথে মানুষের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে দেশে এই ভ্যারিয়েন্ট ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে শংকা প্রকাশ করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এবিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, ভারত থেকে যারা আসছেন তাদের মধ্যে সংক্রমণের হারটা অনেক বেশি। এ বিষয়ে সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর সিভিল সার্জন এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় পরিচালকদের বলা হয়েছে যারা ভারত থেকে আসবে তাদের অবশ্যই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

ভারতফেরত যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা করেছে সরকার। তবে, সীমান্ত দিয়ে চোরাই পথে যাতায়াত বন্ধ হয়নি। অনেকেই ভারত থেকে ফিরে মিশে যাচ্ছে জনস্রোতে। এদিকে ৫৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আমীর হোসেন মোল্লা বলেন, অবৈধভাবে দেশে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টিনে নেয়া যাচ্ছেনা। যার কারণে করোনার ভারতীয় ধরণ শঙ্কা থাকছেই।

অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা আরো জানান, বৈধ স্থলবন্দর ছাড়াও দুই দেশের বিস্তীর্ণ সীমান্ত এলাকা। এর সব স্থানে কাঁটাতারের বেড়া নেই। এসব পথ দিয়ে অবৈধভাবে দৈনিক বিপুল সংখ্যক মানুষ দেশে প্রবেশ করছে। এদেরকে যদি সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করা না যায় তবে একটা ভয় থেকেই যাচ্ছে। এ পর্যন্ত নয়জনের শরীরে ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে। সীমান্তবর্তী জেলা ছাড়াও শনাক্তের হার বাড়ছে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও গাজীপুরে।

 

স্বাধীনবাংলা  টিভি

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ