বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ১০:৫১ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

৩ বছর পর মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার সংক্রান্ত সমঝোতা চুক্তি

অর্থনীতি খবরঃ

দীর্ঘ দিন মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজা বন্ধ থাকার পর দু’দেশের মধ্যে অভিবাসী কর্মী সংক্রান্ত সমঝোতা চুক্তি হতে যাচ্ছে শিগগিরই। এতে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজারের দরজা খুলতে যাচ্ছে। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় বলছে- রিক্রুটিং এজেন্সির কোন সিন্ডিকেট নয়, এবার কর্মী পাঠাতে পারবেন সব অনুমোদিত এজেন্সিই।

২০১৮ সালে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি কর্মী গেছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার। পরে কর্মী পাঠাতে ১০ টি রিক্রুটিং এজেন্সিকে সিন্ডিকেটের অভিযোগ তুলে, ওই বছরই সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় দেশটির শ্রমবাজার। এরপর দফায় দফায় বৈঠকের পরও  দরজা খোলেনি মালয়েশিয়ার।

আরও পড়ুনঃ ‘পাকিস্তানের দুর্দান্ত জয়’

অবশেষে সিন্ডিকেট নয়, ডাটাবেইজ ভিত্তিতে কর্মী নিতে মালয়েশিয়া সরকারের সাথে শিগগিরই চুক্তি হবে। একথা জানিয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, ‘এবার কোন সিন্ডিকেট থাকছে না। এমইউ  ড্রাফট যেটা পাঠানো হয়েছিলো সেটা ফাইনাল করে মালয়েশিয়া আমাদের পাঠিয়েছে। এটি স্বাক্ষর হয়ে গেলে সব রাস্তা ওপেন হয়ে যাবে।’ এরই মধ্যে কৃষি খাতে বাংলাদেশসহ দুটি দেশ থেকে ৩২ হাজার কর্মী নেয়ার কথাও জানিয়েছে মালয়েশিয়া সরকার।

 

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সির সাবেক মহাসচিব শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান বলেন,‘ যারা যেভাবে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ করেন তাদের সাথে যেভাবে এমইউ হয়েছে ঠিক  বাংলাদেশের সঙ্গে একইভাবে এমইউ হয়েছে। মালয়েশিয়া সরকারের অধিকার আছে তারা অবৈধ কোন শ্রমিক রাখবে না। ’

এদিকে মালয়েশিয়ায় অবৈধ বাংলাদেশি কর্মীদের ধর পাকড়ের বিষয়টি বিবেচনায় নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা। অভিবাসন বিশেষজ্ঞ আসিফ মুনীর বলেন,‘ বৈধভাবে নেই এই রকম তো অনেক বাঙালী রয়েছে। তাই নতুনের পাশাপাশি পুরাতনদের ব্যাপারেও আলাপ থাকা দরকার। সরকার যদিও বলে থাকে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে না সরাসরি হবে এটা আসলে বাস্তবসম্মত হবে কিনা। মালয়েশিয়াতেও সিন্ডিকেট আছে, সেটা আসলে কিছু কিছু প্রবাসী বাঙালীও জড়িত সে সংকট কিন্তু এখনও নিরসন হয়নি।’

 

বৈধ ডকুমেন্ট না থাকায় এ পর্যন্ত দেড় হাজারের বেশি বাংলাদেশি কর্মী মালয়েশিয়ার কারাগারে রয়েছে। একারণে শ্রমবাজার রক্ষায় বৈধ প্রক্রিয়া মেনে কর্মী পাঠানোর তাগিদ বিশেষজ্ঞদের। আর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী বলেছেন দালালদের দৌরাত্ন্য বন্ধে বিদেশগামীরা যেন সরাসরি ব্যাংকে টাকা জমা দেন। ডিবিসি নিউজ থেকে নেওয়া।

 

স্বাধীনবাংলা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ