শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
“স্বাধীনবাংলা” টেলিভিশন (IP tv) পরিক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে । “ স্বাধীনবাংলা টেলিভিশন” এ দেশের সকল জেলায় প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীগন সিভি পাঠান এই ঠিকানায়ঃ cv.shadhinbanglatv@gmail.com, Android Apps on Google Play থেকে ডাউনলোড করতে Shadhin Bangla Television লিখে সার্চ করুন ***

৫০ বছরে দেশের বিচার ব্যবস্থা এগিয়েছে অনেকটা পথ

স্বাধীনবাংলা, ডেস্ক নিউজঃ

বাধা সত্ত্বেও ৫০ বছরে বিচার ব্যবস্থা এগিয়েছে অনেকটা পথ। ডিজিটালাইজেশনসহ আদালতের সংখ্যা বৃদ্ধিতে গতিশীল হয়েছে বিচার বিভাগ।

যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় ছিলো বঙ্গবন্ধুর ভূমিকা অগ্রণী। কিন্তু স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশে বিচার বিভাগের ওপর বারবার নেমে এসেছে খড়গ। সব বাধা পেরিয়ে ৫০ বছরে বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা এগিয়েছে অনেকটা পথ।

পাকিস্তানি স্বৈরশাসনের বেড়াজাল থেকে বেরিয়ে দেশের বিচার বিভাগকে নতুন করে সাজাতে বঙ্গবন্ধুর আপ্রাণ চেষ্টা। মাত্র চার বছর। কিন্ত ইতিহাসের বর্বোরচিত অধ্যায় ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার পর শুরু হয় উল্টোযাত্রা।

২০১৩ সালের ৩০শে এপ্রিল জাতীয় চার নেতার বিচারে দায় মুক্ত হয় জাতি।  মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধের বিচার। বঙ্গবন্ধুর হত্যার কারনে থমকে যায় সে প্রক্রিয়াও। বিচারের কাঠগড়ার পরিবর্তে রাজাকার আলবদররা বসে রাষ্ট্রক্ষমতায়। আলাদা ট্রাইবুন্যালে বিচারের আওতায় আসে গোলাম আজম-নিজামীরা।

এছাড়া বিচার বিভাগকে ডিজিটালাইজেশন করা। অবকাঠামোগত উন্নয়ন, বিচারক ও আদালতের সংখ্যাবৃদ্ধি করে বিচার বিভাগকে গতিশীল করা হয়। হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগে প্রথম নারী বিচারপতি শেখ হাসিনার হাত ধরেই নিয়োগ পান।

বিশেষ বিচারিক আদালতের বিচারকদের নিয়োগ, পদোন্নতি, বদলি, শৃংখলা রক্ষায় বর্তমান সরকার যুগপোযোগী পদক্ষেপ নেয়। বিচারপতি ও বিচারকদের জন্য করেছেন আলাদা বেতন স্কেল। করোনাকালে বিশ্বের অনেক উন্নত দেশের বিচার বিভাগ বন্ধ থাকলেও বাংলাদেশে ছিলো সচল। গত বছরের ৯ই মে আদালতে তথ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহার আইন পাস করা হয়।

এছাড়া, ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা, নারায়ণগঞ্জের সাত খুন, ফেনীর নুসরাত হত্যা, রমনা বটমূলে বোমা হামলা মামলার রায় কার্যকরও এই সরকারের সময়। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে এসে এসব অর্জনে গর্ব বোধ করেন বাংলাদেশের বয়সী প্রজন্ম।  ৫০ বছরে দেশের বিচার বিভাগ যতটুকু এগিয়েছে, এই ধারা অব্যাহত থাকলে বাকিপথটুকুও মসৃণ হবে বলেই আশা।

 

এসবিএন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


আমাদের ফেসবুক পেইজ